Skip to content
Dec 15 13

MySQL: ERROR 1045 (28000): Access denied for user ‘root’@'localhost’ (using password: NO)

by tarique

I have recently installed MySQL in my Ubuntu Saucy. After installation finished, I get this error: ERROR 1045 (28000): Access denied for user ‘root’@'localhost’ (using password: NO). I just followed the solution given by Edgar Aviles in StackOverFlow.
~$ mysql -u root -p
Enter Password:

mysql> grant all privileges on *.* to bill@localhost identified by 'pass' with grant option;

All honor goes to Edgar. cheers!

Sep 13 13

Rails: translation missing: en.activerecord

by tarique

I had the following exception when I was trying to develop Sample App by Micheal Hartle:

translation missing: en.activerecord.errors.messages.record_invalid

I had this because I did not have the English translations for active record. All I had to do is run rake db:reset and then just copy-paste the lines of code to /config/locale/en.yml file.

Aug 22 13

Git: error: src refspec master does not match any

by tarique

I have got the following problem while I am trying this:

git init
git commit -m "Initial commit"
git remote add origin git@github.com:XXX/XXXX.git
git push -u origin master

error: src refspec master does not match any.
error: failed to push some refs to 'git@github.com:XXX/XXXX.git'

Then, I tried this:
git add .
git push
No refs in common and none specified; doing nothing.
Perhaps you should specify a branch such as 'master'.
fatal: The remote end hung up unexpectedly
error: failed to push some refs to 'git@github.com:XXX/XXXX.git'

The reason for this error message is that I forgot to commit in the git after run git add . command.
So, it should be:

git init
git remote add origin git@github.com:XXX/XXXX.git
git add .
git commit -m "Initial commit"
git push -u origin master

Aug 16 13

ActiveRecord::StatementInvalid: SQLite3::BusyException: database is locked

by tarique

I had this issue while I was trying to insert a record into my SQLite3 database using rails console.
ActiveRecord::StatementInvalid: SQLite3::BusyException: database is locked: INSERT INTO "users" ("created_at", "email", "name", "password_digest", "updated_at") VALUES (?, ?, ?, ?, ?). I tried every way around to solve this issue found in Google and I failed. All I did…just close my SQLite Database Browser and it solved my problem!!

Aug 14 13

Push Your App to Renamed Heroku App

by tarique

The command git push heroku master wont work if you rename your Heroku app from the Heroku website. You have to update the git remote for the app as following:

git remote rm heroku
git remote add heroku git@heroku.com:yourappname.git

Thanks to: James Ward

Source: StackOverFlow

Apr 17 13

[HOW TO] Install Oracle JDK 7 in Linux Mint/Ubuntu12.10

by tarique

sudo add-apt-repository ppa:webupd8team/java
sudo apt-get update
sudo apt-get install oracle-java7-installer

Apr 17 13

[HOW TO] Install Ruby and Rails in Linux Mint 14 Nadia/Ubuntu 12.10

by tarique

Open terminal (CTR+ALT+T) and run the following commands.

1. Sudo apt-get install git

2. sudo apt-get install curl

3. curl -L https://get.rvm.io | bash -s stable --ruby

4. sudo apt-get install git-core

5. source ~/.rvm/scripts/rvm

6. bash -s stable < <(curl -s https://raw.github.com/wayneeseguin/rvm/master/binscripts/rvm-installer)

7. rvm autolibs enable

8. rvm requirements

9. sudo apt-get install build-essential openssl libreadline6 libreadline6-dev \
curl git-core zlib1g zlib1g-dev libssl-dev libyaml-dev libsqlite3-dev sqlite3 \
libxml2-dev libxslt-dev autoconf libc6-dev ncurses-dev automake libtool bison \
subversion

10. rvm install ruby-2.0

11. curl -L https://get.rvm.io | bash -s stable --rails

12. source /home/gazi/.rvm/scripts/rvm

Feb 23 13

[How to] Install Apache PHP MySQL and PhpMyAdmin on Ubuntu 12.10

by tarique

APACHE:

Open terminal (CTR+ALT+T) and type:

sudo apt-get install apache2

Open a browser and type http://localhost and you should see this:

Screenshot from 2013-02-20 11:17:35

It makes sure that the Apache server installed successfully. Next, we will install PHP.

PHP:

sudo apt-get install libapache2-mod-php5 php5

This will install PHP5 with the libraries to interface with Apache. So, we need to restart Apache server.

sudo etc/init.d/apache2 restart

If you can not edit/access configuration files, then please follow the steps.

Now, create a file called test.php to test it out.

sudo nano /var/www/test.php

write phpinfo() function so we can check out our installation:

phpinfo();
?>

You should come up with this:

Screenshot from 2013-02-20 12:50:24

MySQL:

sudo apt-get install mysql-server libapache2-mod-auth-mysql php5-mysql

MySQL will ask you for password. It is not a good practice to leave the password field as blank.
Now, we test our server to make sure it is working as expected:

mysql -u root -p

show databases;

Screenshot from 2013-02-20 12:56:12

or you can follow this tutorial.

Installing PhpMyAdmin:

Open Terminal and type the below code and hit enter.

sudo apt-get install phpmyadmin

Type y and hit enter to confirm phpMyadmin installation and you will be prompted for a webserver configuration during the installation.

Select apache2

You will be prompted for phpmyadmin configuration and you should select No

Type the following command in terminal:

sudo cp /etc/phpmyadmin/apache.conf /etc/apache2/conf.d

Restart Apache server:

sudo /etc/init.d/apache2 restart or sudo service apache2 restart

Finally, open browser and type http://localhost/phpmyadmin/

Screenshot from 2013-02-23 15:30:40

PhpMyAdmin is by default configured as to not allow password less login. You will most likely get Login without a password is forbidden by configuration (see AllowNoPassword) error when trying to login to your passwordless account;
You have to configure config.inc.php file. To do that, go to: /etc/phpmyadmin/config.inc.php and uncomment or add the following line, and set the the value to TRUE.

$cfg['Servers'][$i]['AllowNoPassword'] = TRUE;

If you can not edit/access configuration files, then please follow the steps.

Feb 20 13

[How To] get permissions to edit system configuration files

by tarique

Open terminal (CTR+ALT+T) and type sudoedit [file location]
sudoedit /etc/phpmyadmin/config.inc.php if you are using a terminal-based editor such as nano or are ssh’ing into a server.

hit ENTER and type your root password. You will see the file contents in the terminal window.

Screenshot from 2013-02-20 11:38:37

Use CTR+X after edit and type Y for confirmation. Hit ENTER to save the file.

[Source: http://askubuntu.com/questions/92379/how-do-i-get-permissions-to-edit-system-configuration-files]

Oct 21 12

সাড়ে তেরো শ বছর আগের মসজিদ

by tarique

পাল্টে যাবে দক্ষিণ এশিয়ায় মুসলিমদের আগমনের ইতিহাস

কাজল রশীদ ও ইফতেখার মাহমুদ (প্রথম আলো, তারিখ: ১৯-১০-২০১২)

দিগন্ত বিস্তৃত ফসলের মাঠ। এক পাশে দু-এক ঘর করে ফাঁকা জনবসতি। মোটেই ঘনবসতিপূর্ণ নয় বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের জেলা লালমনিরহাটের পঞ্চগ্রাম ইউনিয়নের রামদাস গ্রাম। অথচ এখানেই আবিষ্কৃত হয়েছে ৬৯ হিজরিতে নির্মিত মসজিদ। সামনে ফসলের মাঠটি একদা ছিল চকচকার বিল। এলাকার প্রবীণ মানুষের কাছে স্থানটি আজও সাগরের ছড়া নামে পরিচিত, যার অনতিদূরে তিস্তা নদীর অবস্থান। ব্রহ্মপুত্র-তিস্তা অববাহিকাকে বলা হয় পৃথিবীর প্রাচীনতম অববাহিকাগুলোর একটি। কাজেই এই অববাহিকায় ৬৯ হিজরি বা ৬৪৮ খ্রিষ্টাব্দে একটি মসজিদ নির্মাণের ঘটনা বিস্ময় জাগানিয়া হলেও একেবারে অস্বাভাবিক নয়। শৌখিন ব্রিটিশ প্রত্নতাত্ত্বিক টিম স্টিলও তেমনটাই মনে করেন। বাংলাদেশ ভূখণ্ডের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলজুড়ে যে প্রাচীন সভ্যতা খ্রিষ্টপূর্ব সময় থেকে গড়ে উঠেছিল, তার সঙ্গে প্রাচীন রোমান ও আরব-সভ্যতার সম্পর্ককে ইতিহাসের স্বাভাবিক ঘটনা হিসেবেই দেখেন টিম স্টিল। সভ্যতার সঙ্গে সভ্যতার এই সম্পর্কের সূত্র ধরেই আরব বণিকেরা লালমনিরহাটের ওই মসজিদটি নির্মাণ করেছিলেন—এমনটাই মনে করেন তিনি।
স্থানীয় অধিবাসী এবং ইতিমধ্যে গঠিত ‘হারানো মসজিদ কমিটি’র সঙ্গে যুক্ত একাধিক ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তাঁদের দাবি অনুযায়ী এই মসজিদটি নির্মাণ করেছেন মহানবী হজরত মোহাম্মদ (সা.)-এর একজন সাহাবা। যিনি এই অঞ্চল দিয়ে চীনে পাড়ি জমিয়েছিলেন। এবং চীনের বিস্মৃত কোয়াংটা নদীর ধারে কোয়াংটা শহরে তাঁর নির্মিত মসজিদ ও সমাধি রয়েছে। ওই সাহাবির নাম আবু আক্কাছ (রা.)।

৬৯ হিজরিতে তৈরি মসজিদের ধ্বংসাবশেষের ওপরই গড়ে উঠেছে বর্তমানের মসজিদ কমপ্লেক্স।

৬৯ হিজরিতে তৈরি মসজিদের ধ্বংসাবশেষের ওপরই গড়ে উঠেছে বর্তমানের মসজিদ কমপ্লেক্স।

মোস্তের আড়া বা মজদের আড়া

বর্তমানের হারানো মসজিদ কমপ্লেক্স যে স্থানে অবস্থিত, সেই স্থানটি একদা পরিচিত ছিল মোস্তের আড়া বা মজদের আড়া নামে। স্থানীয় অধিবাসী দেলওয়ার হোসেন জানান, স্থানটি টিলার মতো ছিল। ওখানে কেউ যেত না। তবে অনেকেই আগরবাতি, মোমবাতি, ফুল, ধুপ ইত্যাদি ওই স্থানে রেখে আসত। এখানে মসজিদ, মন্দির না অন্য কিছু আছে কিছুই জানত না তারা। উল্লেখ্য, স্থানীয় ভাষায় আড়া শব্দের অর্থ হলো জঙ্গলময় স্থান। দীর্ঘদিনের পতিত এই জঙ্গলে স্থানীয় লোকজন হিংস্র জীবজন্তু, সাপ-বিচ্ছু ইত্যাদির ভয়ে ভেতরে প্রবেশ করত না।
জানা যায়, রামদাস এলাকায় বর্তমানে যাঁরা বসবাস করছেন, তাঁদের পূর্ব পুরুষরা ২০০ বছর আগে এখানে বসতি শুরু করেন। হারানো মসজিদ কমপ্লেক্স যা আগে আড়া নামে পরিচিত ছিল, তার একদা মালিক ছিলেন পচা দালাল। তাঁর কাছে থেকে কিনে নেন ইয়াকুব আলী। আনুমানিক সময়কাল ১৯৪৯ খ্রিষ্টাব্দ। পরবর্তী সময়ে উত্তরাধিকার সূত্রে জায়গাটির মালিক হন নবাব আলী। হারানো মসজিদ আবিষ্কারের পর তিনি জায়গাটা হারানো মসজিদ কমপ্লেক্সের নামে দিয়ে দেন।

টিম স্টিলকে মসজিদ কমপ্লেক্সের ভেতরে সংরক্ষিত হারানো মসজিদের অংশবিশেষ দেখাচ্ছেন মসজিদ কমিটির সভাপতি

টিম স্টিলকে মসজিদ কমপ্লেক্সের ভেতরে সংরক্ষিত হারানো মসজিদের অংশবিশেষ দেখাচ্ছেন মসজিদ কমিটির সভাপতি

যেভাবে আবিষ্কার
৬৯ হিজরির হারানো মসজিদ তায়ালিমুল কোরআন নূরানি মাদ্রাসার শিক্ষক হাফিজ নূর আলম জানান, মজদের আড়ায় চাষাবাদ করার জন্য খোঁড়া শুরু হয় ১৯৮৩-’৮৪ সালের দিকে। টিলাটি সমতল করার জন্য খোঁড়া শুরু হলে এখানে প্রচুর ইট পাওয়া যায়। স্থানীয় লোকজনের ধারণা, পুরোনো কোনো জমিদার কিংবা রাজরাজড়ার বাড়ি হয়তো এখানে ছিল। এ কারণে তারা এ নিয়ে কোনো রূপ সতর্ক হওয়ার প্রয়োজন অনুভব করেনি। যে যার মতো ভাঙা ইটের টুকরো নিয়ে গেছে এবং বেশির ভাগই তারা নিজেদের বাড়িঘরের কাজে লাগিয়েছে। কিন্তু একটা ঘটনায় পাল্টে যায় পুরো ঘটনাচক্র।

মসজিদের ইট হাতে টিম স্টিল

মসজিদের ইট হাতে টিম স্টিল

‘ছটকে পড়া’ ইট
একটা ইটের ছিটকে পড়ার ঘটনা, স্থানীয় ভাষায় ‘ছটকে পড়া’র মধ্য দিয়েই মজদের আড়ায় আবিষ্কৃত হয় ৬৯ হিজরি বা ৬৪৮ খ্রিষ্টাব্দের হারানো মসজিদ। স্থানীয় অধিবাসী আফছার আলী বলেন, ‘আমরা ঘটনাটিকে অলৌকিক বলেই মনে করি। ঘটনাটা হলো, আইয়ুব আলী নামে রামদাসের একজন বাসিন্দা অন্য অনেকের মতো মজদের আড়া থেকে ইট কুড়িয়ে নিয়ে যান, যা পরিষ্কার করার সময় দেখতে পান, ইটের গাদা থেকে একটা ইট যেন আলাদাভাবে ছিটকে পড়ল। তিনি আশ্চর্য হন এবং কৌতূহল বোধ করেন। ছিটকে পড়া ইটটার ওপর কী যেন লেখা দেখতে পান। টিউবওয়েলের পানিতে ইটটা ভালো করে ধুয়ে নেন। তারপর ইটটা অন্যদের দেখালে সবাই দেখতে পান, ওই ইটটি একটি প্রাচীন শিলালিপি, যার আকার ৬X৬X২, ওপরে স্পষ্টাক্ষরে লেখা, লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ হিজরি সন ৬৯। এই ঘটনায় স্থানীয় লোকদের মনে দৃঢ় প্রত্যয় জন্মে, এটা কোনো হারানো মসজিদের ধ্বংসাবশেষ।

অলৌকিক কাহিনি
ওই ঘটনার পর তখনো মজদের আড়ায় নামাজ পড়া শুরু হয়নি। এক রাতে আফছার আলী শুনতে পান একজন বলছেন (কণ্ঠটা ঠিক তাঁর ভায়রা নওয়াব আলীর মতো) চলো, আমরা মজদের আড়ায় নামাজ পড়ি। নামাজ পড়ার জন্য তিনি বেরিয়েও পড়েন। একসময় পৌঁছে যান ভায়রার বাড়িতে। অপেক্ষা করেন, কিন্তু ভায়রা আর ভেতর থেকে বের হন না। পরে ডাকাডাকি শুরু করেন এবং বলেন নামাজ পড়ার জন্য ডেকে নিয়ে এসে তুমি আর বেরোচ্ছ না কেন? এ কথা শুনে নওয়াব আলী তাজ্জব বনে যান। ঘটনাটা এলাকায় জানাজানি হলে, সবাই মিলে ওই দিন থেকেই নামাজ পড়া শুরু করেন। এলাকাবাসীর মতে, সেটা ’৮৬ সালের ঘটনা, ওই দিন ছিল মহররমের ১০ তারিখ। পরবর্তী সময়ে এখানেই নির্মাণ করা হয় হারানো মসজিদ কমপ্লেক্স এবং একটি নূরানী মাদ্রাসা।
উল্লেখ্য, এর আগে এলাকাবাসী নামাজ পড়ত তিন কিলোমিটার দূরের সুবেদার মুনছুর খাঁ নিদাঁড়িয়া মসজিদে, যা একই ইউনিয়নের নয়ারহাট পাড়ায় অবস্থিত। এই মসজিদটি মোগল আমলের স্থাপত্যকীর্তির সাক্ষ্য বহন করছে। অবশ্য এটিও দীর্ঘদিন লোকচক্ষুর আড়ালে ছিল। স্থানীয় লোকজন গরু খুঁজতে গিয়ে এই মসজিদটি জঙ্গলের ভেতর খুঁজে পায়। অবশ্য এলাকাবাসী তারও আগে ছয় থেকে সাত কিলোমিটার দূরের রতিপুরের কেরামতিয়া বড় মসজিদে নামাজ পড়তে যেত।

আরবিতে হিজরি সন উল্লেখিত শিলালিপি

আরবিতে হিজরি সন উল্লেখিত শিলালিপি


সাক্ষী শিলালিপি

যে শিলালিপির আলোকে হারানো মসজিদকে ৬৯ হিজরির বলা হচ্ছে, সেই শিলালিপি এখন নানা হাত ঘুরে রংপুরের তাজহাট জমিদারবাড়ির জাদুঘরে সংরক্ষিত আছে। শিলালিপিটি রামদাসবাসীর কাছ থেকে নিয়ে যান কুড়িগ্রামের একজন সাংবাদিক। তাঁর কাছ থেকে পরবর্তী সময়ে সংগ্রহ করে সংরক্ষণের জন্য রাখা হয় তাজহাট জমিদারবাড়ি জাদুঘরে। উল্লেখ্য, ১৯৯৩ সালে রংপুুরের টাউন হলে একটি সেমিনারের আয়োজন করা হয়। যার বিষয় ছিল ‘হিজরি প্রথম শতাব্দীতে ইসলাম ও বাংলাদেশ’। এতে সভাপতিত্ব করেন কারমাইকেল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল কুদ্দুস বিশ্বাস। প্রবন্ধকার ও সব আলোচক ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপটে প্রমাণ করতে সক্ষম হন যে, ৬৯ হিজরি অর্থাৎ ৬৪৮ খ্রিষ্টাব্দে সাহাবায়ে কেরামগণ কর্তৃক এই হারানো মসজিদ নির্মাণ করা মোটেই অসম্ভব নয়।

টিম স্টিল

টিম স্টিল

একজন টিম স্টিল
কর্মসূত্রে টিম স্টিল তখন বাংলাদেশের টাইগার ট্যুরিজম নামের একটি পর্যটন উন্নয়নবিষয়ক প্রতিষ্ঠানের উপদেষ্টা। সাউথ ওয়েলসে স্ত্রী ক্রিস্টিন ও দুই মেয়ের সঙ্গে ছুটি কাটিয়ে বাংলাদেশে ফিরলেন তিনি। ছুটে গেলেন লালমনিরহাটে। খুঁজে বের করলেন প্রাচীন মসজিদটি। তিনি বাংলা ও উপমহাদেশের প্রাচীন ইতিহাস তন্ন তন্ন করে খুঁজতে শুরু করলেন। ৬৪৮ খ্রিষ্টাব্দে কে কেন লালমনিরহাট এলাকায় ওই মসজিদ নির্মাণ করল তা খুঁজতে নেমে গেলেন তিনি। যোগাযোগ করলেন সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় ও প্রত্নতাত্ত্বিক অধিদপ্তরের সঙ্গে। তারা আগ্রহ দেখাল না। বেশির ভাগ প্রত্নতাত্ত্বিক ও ইতিহাসবিদ বললেন এত আগে ওই অঞ্চলে মসজিদ নির্মিত হওয়ার কথা না। বাংলার ইসলাম বিস্তারের ইতিহাসের প্রভাবশালী ধারা বলে ১০০০ শতকে চট্টগ্রামে সুফিদের প্রথম আগমন ঘটে। ১১০০ থেকে ১২০০ শতকে সুফিদের হাত ধরে পূর্ববাংলায় ইসলামের প্রচার ও প্রসার শুরু। তাঁদের হাতেই এই অঞ্চলে প্রথম মসজিদ নির্মাণ হয়। পরে সুলতান ও মোগলদের হাত ধরে তার আরও প্রসার ঘটে।
লালমনিরহাটের এক প্রত্যন্ত গ্রামে দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে প্রাচীন মসজিদ রয়েছে, এটা প্রমাণের জন্য টিম স্টিল সহায়তা নিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্নতাত্ত্বিকদের সবচেয়ে প্রভাবশালী প্রতিষ্ঠান আমেরিকান ইনস্টিটিউট অব আর্কিওলজিস্টের। সেখানকার ইসলামের ইতিহাস ও প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন নিয়ে গবেষণা করেন এমন সব গবেষকদের সঙ্গে যোগাযোগ করলেন। তাঁরা বললেন হ্যাঁ, হতে পারে। কেননা, রোমান ও জার্মান অনেক ইতিহাসবিদের লেখায় আরব ও রোমান বণিকদের ব্রহ্মপুত্র অববাহিকায় নৌ-বাণিজ্যের সূত্রে আসা-যাওয়ার কথা লিপিবদ্ধ আছে। আমেরিকান ইনস্টিটিউট অব আর্কিওলজি টিম স্টিলকে জানায়, তাদের বেশ কয়েকটি চলমান গবেষণায় ব্রহ্মপুত্র-তিস্তা অববাহিকাকে পৃথিবীর সবচেয়ে পুরোনো আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের নৌপথ হিসেবে ব্যবহূত হওয়ার প্রমাণও পাওয়া গেছে।
টিম জানতে পারলেন, ব্রহ্মপুত্র ও তিস্তার পাড় ধরে সিকিম হয়ে চীনের ভেতর দিয়ে আরব বণিকদের বাণিজ্যবহরের যাতায়াতের অনেক প্রমাণও টিমের হাতে আসে। টিমের গবেষণায় আরও প্রমাণ মেলে খ্রিষ্টপূর্ব সময় থেকে ব্রহ্মপুত্র অববাহিকা দিয়ে চীন ও ভারতবর্ষ থেকে রোমান ও আরবরা পণ্য নিয়ে যেত। রোমানদের সঙ্গে বাংলার যোগাযোগের আরও প্রমাণ তিনি পান জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক সুফি মোস্তাফুির রহমানের ওয়ারি-বটেশ্বর সভ্যতা নিয়ে গবেষণায়। নরসংদী থেকে কিশোরগঞ্জ পর্যন্ত বিস্তীর্ণ অঞ্চলজুড়ে প্রাচীন নগর-সভ্যতার যে নিদর্শন মোস্তাফিজুর রহমান পেয়েছেন, তাতে এটা ধীরে ধীরে পরিষ্কার হয়ে পড়ছে, দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে প্রাচীন সভ্যতা বাংলাদেশ ভূখণ্ডে গড়ে উঠেছিল। পঞ্চগড়ের ভিটাগড়ে প্রাচীন নগরের নিদর্শন পাওয়া প্রত্নতাত্ত্বিক অধ্যাপক শাহনেওয়াজের গবেষণা থেকেও সহায়তা পান টিম। বগুড়ার মহাস্থানগড় বা নওগাঁর প্রাচীন মসজিদ এই সবকিছুকে বাংলাদেশ ভূখণ্ডে গড়ে ওঠা প্রাচীন-সভ্যতার ধারাবাহিকতা হিসেবে দেখতে চান টিম স্টিল।
এই শৌখিন প্রত্নতাত্ত্বিক ১৯৯৮ সাল থেকে বাংলাদেশের ইতিহাস অনুসন্ধানের মধ্য দিয়ে জীবনের আরেক নতুন অধ্যায়ের সূচনা করেছেন। লালমনিরহাটে দক্ষিণ এশিয়ার প্রাচীন মসজিদের খোঁজ পেয়ে এই অঞ্চলের ইতিহাস ও ঐতিহ্য সম্পর্কে জানার যে নেশা তাঁকে পেয়ে বসেছে তা থেকে মুক্ত হতে চান না তিনি। তাই তো নিজ উদ্যোগে ও খরচে চালিয়ে যাচ্ছেন তাঁর শখের প্রত্নতাত্ত্বিক গবেষণা।
বাংলাদেশের ওই হারানো মসজিদের ওপর আরও গবেষণা হওয়া উচিত এই আকুতি রেখে টিম বলেন, ওই মসজিদ নির্মাণের ইতিহাস খুঁজে পেলে হয়তো বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের ইতিহাসের সঙ্গে বিশ্ব সভ্যতার সম্পর্কের আরেক ইতিহাস জানার পথ খুলে যাবে। রোমান, চৈনিক, আরব আর বাংলা—এই চার অঞ্চলের প্রাচীন সভ্যতার সঙ্গে সম্পর্ক জানা গেলে হয়তো পৃথিবীর ইতিহাস অন্যভাবে লিখতে হবে। টিম স্টিলের গবেষণায় প্রতীয়মান হচ্ছে, এটি এক হাজার তিন শ চৌষট্টি বছর আগের মসজিদ! যার সূত্র ধরে পাল্টে যাবে দক্ষিণ এশিয়ায় মুসলিমদের আগমনের ইতিহাস।

Source: প্রথম আলো, তারিখ: ১৯-১০-২০১২, (URL: http://www.prothom-alo.com/detail/date/2012-10-19/news/299066)